শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:২২ অপরাহ্ন

“কষ্টের টাকায় ভেজাল খাবার”

রিপু / ৯৮ বার
আপডেট : রবিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২২
কষ্টের টাকায় ভেজাল খাবার

নিজস্ব প্রতিবেদক, নরসিংদী জার্নাল|| কষ্টের টাকায় ভেজাল খাবার|

দেশের জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে ক্ষতিগ্রস্ত হয় পরিপাকতন্ত্র, লিভার-কিডনিসহ বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ, স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া, অনিদ্রা, খিটখিটে মেজাজ তৈরি হয় :: ভেজাল খাবার তদারকি দায়িত্

দেশে প্রতিটি খাদ্যপণ্যের দাম অস্বাভাবিক পর্যায়ে বেড়ে গেছে। প্রশ্ন হচ্ছে প্রতিদিন বেশি দাম দিয়ে কিনে মানুষ কি খাচ্ছেন? হোটেল রেস্তোরাঁর সুস্বাদু গ্রিল, কাবাব, শর্মা, রোস্ট, চিকেন স্যুপ থেকে শুরু করে মাছ-গোশত, ফলমূল, শাক-সবজি, দুধ ও অন্যান্য পানীয় দ্রব্যসহ সর্বত্র ভেজালের ছড়াছড়ি। অভিজাত হোটেল থেকে রাস্তার ফুটপাত একই চিত্র। ভেজাল খাবার খাওয়ায় কিডনি সংক্রান্ত জটিলতা এবং হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রতিবছর মারা যাচ্ছে লাখ লাখ মানুষ। এ ছাড়াও নানা জটিলতায় পড়ছে মানুষ এসব ভেজাল খাবার খেয়ে।

অথচ ভেজাল খাবার তদারকি দায়িত্ব যাদের সেই সব প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) যেন জেগেই ঘুমাচ্ছে। মাঝেমধ্যে এসব প্রতিষ্ঠান অভিযান চালায় এবং ভ্রাম্যমান আদালত বসায় সেগুলো কার্যত লোক দেখানো এবং টিভি ক্যামেরা দেখানোর জন্য। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় নামকরা হোটেল এবং ফাস্টফুডের দোকানে অনুসন্ধান করে এ চিত্র পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয় যুক্তরাজ্যভিত্তিক দি ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) ‘গ্লোবাল ফুড সিকিউরিটি ইনডেক্স ২০২২’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বাংলাদেশের সর্বোত্রই ভেজাল খাবার চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয় ভেজাল খাদ্যের তালিকায় বিশ্বের ১১৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৮০তম। দেশের ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরির গবেষণায়ও গরুর দুধ, দইয়ের মধ্যে বিপজ্জনক মাত্রায় অণুজীব, অ্যান্টিবায়োটিক, কীটনাশক এবং সিসা পাওয়া যায়। জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের পরীক্ষাগারে বাজারের বিভিন্ন কোম্পানির তরল দুধের নমুনা পরীক্ষা করে এতে অ্যালড্রিনের উপস্থিতি পেয়েছে।

আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ভেজাল খাওয়ার কারণে ২০২০ সালে কিডনি সংক্রান্ত জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২৮ হাজার ১৭ জন। আর ২০১৯ সালে মারা গেছে ১০ হাজার ৬২২ জন। বাংলাদেশে প্রতি বছর ২ লাখ ৭৭ হাজার মানুষ হৃদরোগে মারা যায়, যার ৪ দশমিক ৪১ শতাংশের জন্য দায়ী ট্রান্সফ্যাট।

জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের প্রফেসর ড. এম আকতারুজ্জামান বলেন, কিছু কিছু খাবারে ভেজালতো আছেই। নিয়ন্ত্রক সংস্থার উচিত এ বিষয়ে তদারকি করা। সেই সঙ্গে সাধারণ মানুষকেও সচেতন হতে হবে। বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য মো. রেজাউল করিম বলেন, অভিযান দিয়ে নিরাপদ খাদ্য হয় না। নিরাপদ খাদ্যের জন্য দরকার জানা, বোঝা এবং মানা। তারপর হচ্ছে অভিযান। খাবারটা একটা বিজ্ঞানভিত্তিক ব্যাপার। আমাদের অভিযান হয়, সবাই যেহেতু অভিযান করে; আমরাও করি।

কিন্তু সেখানে সমস্যাটা হচ্ছে, আমাদের লোকবল খুবই কম। তা ছাড়া অভিযান কোনো দীর্ঘমেয়াদী ফলাফল দেবে না। মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলোর অন্যতম খাদ্য। নাগরিকদের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের অন্যতম দায়িত্ব। দেশের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে ২০১৩ সালে নিরাপদ খাদ্য আইন চালু হয়েছে। তবে নিয়মিত নজরদারি ও আইন বাস্তবায়নের অভাবে থামছে না অসাধু ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য। ব্যবসায়ীদের অপতৎপরতার কারণে মানুষ আজ চরম খাদ্য নিরাপত্তাহীনতার শিকার। খাদ্যদ্রব্যে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল আর বিষাক্ত দ্রব্যের অতিরঞ্জিত ব্যবহারে নির্ভেজাল খাবার পাওয়াই দায়। ভেজাল খাদ্যের প্রভাবে ক্যান্সার, লিভার সিরোসিস এবং কিডনি অকেজো হওয়ার মতো অন্যান্য ক্রনিক রোগ ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়ছে।

ফলমূল, মাছ, গোশত থেকে শুরু করে শাক-সবজি, দুধ ও অন্যান্য পানীয় দ্রব্যসহ সর্বত্র ভেজালের ছড়াছড়ি। একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীর অর্থলিপ্সা আর নিষ্ঠুরতা থেকে রেহাই পাচ্ছে না সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। অন্যদিকে তদারকি প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর ও বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) তৎপরতা চোখে পড়ার মতো নয়। দু’চার দিন অভিযান পরিচালনার পর আবারো নিখোঁজ হয়ে যান তারা। যদিও তারা বলছেন, জনবল সঙ্কটের কারণে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা যাচ্ছে না। এতে অসাধু ব্যবসায়ীদের অপতৎপরতা আরো বেড়ে যায়। সব মিলিয়ে রীতিমতো ‘ঘুম হারাম’ নিম্ন, মধ্য ও উচ্চমধ্যবিত্ত মানুষের।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ । রিপু /নরসিংদী জার্নাল

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ