শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

“সেই রোলস রয়েস খালাসে গুনতে হবে ৮৫ কোটি টাকা”

প্রতিনিধির নাম / ৭২ বার
আপডেট : মঙ্গলবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২২
সেই রোলস রয়েস খালাসে গুনতে হবে ৮৫ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, নরসিংদী জার্নাল|| সেই রোলস রয়েস খালাসে গুনতে হবে ৮৫ কোটি টাকা|

শুল্ক গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের হাতে জব্দ হওয়া বিলাসবহুল রোলস রয়েস ব্র্যান্ডের একটি গাড়ির আমদানিকারককে ৫৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে চট্টগ্রাম কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে বিমোচন জরিমানা আরোপ করা হয়েছে ৪০ লাখ টাকা। একই সঙ্গে পরিশোধ করতে হবে আরও ২৮ কোটি ২৯ লাখ টাকা শুল্ক কর। সব মিলিয়ে গাড়িটি খালাসে জরিমানা গুনতে হবে ৮৫ কোটি টাকা।

শুল্ক গোয়েন্দাদের করা কাস্টমস মামলায় গত ১২ অক্টোবর চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের কমিশনার মোহাম্মদ ফাইজুর রহমান এ আদেশ দেন। বিষয়টি আজ মঙ্গলবার গণমাধ্যমের খবরে আসে। আদেশে ৩০ দিনের মধ্যে শুল্ক কর ও জরিমানা পরিশোধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে আমদানিকারক চাইলে কাস্টম, এক্সাইজ ও ভ্যাট ট্রাইব্যুনালে এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন।

এর আগে গত ৬ জুলাই বিলাসবহুল গাড়িটি জব্দ করার তথ্য জানায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। শুল্কায়ন না করেই গাড়িটি সরিয়ে ঢাকার বারিধারার একটি বাসায় লুকিয়ে রাখা হয়েছিল।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম ইপিজেডের হংকং ও বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত জেড অ্যান্ড জেড ইনটিমেটস লিমিটেড শুল্কমুক্ত সুবিধায় গাড়িটি আমদানি করে। গত এপ্রিলে গাড়িটি আমদানির পর চট্টগ্রামের ইপিজেড এলাকার ফ্যাক্টরিতে নেওয়া হয়। এরপর শুল্কায়নের জন্য কাগজপত্র দাখিল করা হয় কাস্টমসে। তবে শুল্কায়নের আগেই ১৭ মে গাড়িটি প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরীফ জহিরের ঢাকার বারিধারায় বাসায় সরিয়ে নেওয়া হয়।

এরপর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর প্রথমে চট্টগ্রাম ইপিজেড ও পরে ৪ জুলাই প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বারিধারার বাসায় অভিযান চালায়। অভিযানে ওই বাসার গ্যারেজ থেকে গাড়িটি জব্দ করা হয়।

ওই সময় কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের যুগ্ম পরিচালক মো. শামসুল আরেফিন খান বলেছিলেন, গাড়িটি শুল্কমুক্ত সুবিধায় আমদানি করা হয়েছিল। তবে যে এসআরও বলে গাড়িটি আমদানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা নেওয়া হয়েছে তাতে কার আমদানিতে দুই হাজার সিসি পর্যন্ত আমদানিকারক শুল্কমুক্ত সুবিধা পাবেন। কিন্তু বিলাসবহুল গাড়িটির বনেটে লেখা স্টিকারে দেখা যায়, এটি রোলস রয়েস মোটরকার, যার সিসি ৬৭৫০। এতে উল্লেখিত এসআরওর সুবিধা এই গাড়ি আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হওয়ার কথা নয়।

কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর জানিয়েছে, গাড়িটির সিলিন্ডার ক্যাপাসিটি ছয় হাজার ৭৫০। এ ধরনের গাড়িতে শুল্কায়িত মূল্যের আটগুণ শুল্ক কর দিতে হয়। এটি স্পোর্টস ইউটিলিটি ভেহিকেল ধরনের গাড়ি। গাড়িটি উৎপাদনের সাল ২০২১। মডেলের নাম কুলিনান এসইউভি।

এই ওয়েবসাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ । রিপু /নরসিংদী জার্নাল

Facebook Comments Box


এ জাতীয় আরো সংবাদ